সুন্দরবনের বাঘমামা আপনি ভ্যানচালক হলে বাঁচতে পারতেন

index
বাঘ মামা,
পরসমাচার হলো এই যে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন বাঘসম্রাট অধ্যুষিত সুন্দরবনে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের যারা প্রতিবাদ করছেন তা যেন সেখানে বাঘেদের কাছে জানতে চান বাঘেরা কেমন আছেন?; সে কারণে আপাতত সশরীরে আপনারে কাছে না যেতে পারলেও পত্র লিখছি। আপনাদের ওখানে মোবাইল নেটওয়ার্ক ভালো না, বাংলালিঙ্ক আপনাদের ফটুক দিয়া লোগো বানাইয়া ব্যবসা করতাছে, কিন্তু উহারাও কোন কথা কয় না। তারা পকেটে মালকড়ি ভরতে ব্যস্ত।
বাঘ মামা,
আপনি ভ্যান চালাইতে পারেন না। আপনি যদি গোপালগঞ্জের লোক হইতেন আর ভ্যান চালাইতে পারতেন, আপনার ভ্যানে যদি প্রধানমন্ত্রী চইড়া নাতিপুতিকে তার দেশগাঁ ঘুরাইয়া দেখাইতে পারতেন, তাহলে বাঘ মামা আপনি বাঁইচা যাইতেন, আপনাকে আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী বিমান বাহিনীতে চাকরী পাইতেন, আপনার কাছে বিদ্যুৎকেন্দ্র খোলা হইতো না।
বাঘ মামা,
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রায়ই বলে থাকেন, ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’। তাই আপনাদের সুন্দরবন উজাড় হয়ে যায় যদি তাহলে সেটিও একটি বিচ্ছিন্ন হবে, জ্যোতিষী বাঘ্র কুমার দাশ এ কথা বলেছেন। আপনারা বাঘেরা সব পালিয়ে গেলে বা মারা পড়লে তিনি বলবেন যে ‘বাঘেদের সঙ্গে একটু ধাক্কাধাক্কি হয়েছে।’ পরে বলবেন: ‘ঘটনাটি তার জানা ছিল না।’
বাঘ মামা,
আরেক কাজ করতে পারেন, ইনু-মেননদের মতো ফ্রি টিকিট নিয়ে চলে যেতে পারেন হজ্জ্ব করতে। তাতে আপনার কমিউনিস্টত্ব যাবে না। কিছু লোককে ট্যাকাটুকা দিয়ে দিবেন, তারা আপনার হয়ে প্রচার চালাবে যে বস্তুবাদী দ্বান্দ্বিকতা ও আস্তিকতায় কোনু সংঘর্ষ নেই। আর আপনাদের ফলো করে মফস্বলের তরুণেরা যে মারা গেছে শ্রেণী শত্রু খতমের নামে তাদের রক্ত মুছে শাদা কাপড় পেঁচিয়ে নেবেন, ধর্মের শাদা কাপড়ে রক্তের দাগ দেখা যায় না।
বাঘ মামা,
আপনারা সপরিবারে কি লটবহর গুছিয়ে নিয়েছেন? এমন হতে পারে যেদিন মৃত্যুর ভিসা দেয়া হবে সেদিনই বিমানে উঠিয়ে দেবে। মামা রিফিউজি হওয়া বড় কষ্টের। দেখেন না আমেরিকায় গ্রীন কার্ড বলেন, ডুয়েল সিটিজেনশিপ বলেন কোন ভ্যালু নাই। মামা আপনাকে জাতীয়তাবাদী বাঘ হতে হবে। এখন জাতীয়তাবাদী বাঘের ভ্যালু অনেক। এমনকি আপনি প্রেসিডেন্টও হয়ে যেতে পারেন।
বাঘ মামা,
এ দেশে জীবিত মুক্তিযোদ্ধার থেকে মৃত বিপ্লবীর দাম বেশি। বেঁচে থাকলে দাম নেই এদেশে, মরে গেলে তার দাম বেড়ে যায়। আপনি থাকবেন আমাদের ক্রিকেট দলের লোগো হিসেবে অম্লান, আামাদের গর্ব হিসেবে। যেদিন বাংলাদেশ ক্রিকেটে বিশ্বকাপ পাবে সেদিন পৃৃথিবীর সকলে রয়েল বেঙ্গল টাইগারকে শ্রদ্ধা জানাবে মাথা নুয়ে। সে কারণে আপনার আর জীবিত থাকার দরকার নাই, আপনাকে লিজেন্ড হতে হবে। বাংলাদেশ ক্রিকেট দলও আপনার পক্ষে কিছু বলবে না, কেননা তারা বড় চাকরি করে। এ বয়সে চাকরি হারাতে পারবে না তারা।
বাঘ মামা,
আপনি পাঠ্যপুস্তক সাম্প্রদায়িকতার পক্ষে কথা বলেননি। তাই আপনি দুধভাত। আপনি যদি এবার সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে থেমিসের মূর্তির বিপক্ষে না নামেন আপনার আর রক্ষা নাই । শফি হুজুরের নেক নজরে পড়ার চেষ্টা করুন। তিনি এখন আমাদের মা-বাপ আসলে, তিনি নিজে নড়াচড়া করতে পারেন না, অথচ তিনিই হলেন এদেশের সবচে’ ক্ষমতাধর ব্যক্তি। আর আপনার চার বছরের কন্যাকে ওড়না পড়তে দিন, বউকে হিজাব পড়ান।
বাঘ মামা,
শুনলাম বাঘ মামী নাকি কান্নাকাটি জুড়ে দিয়েছে। বাঘ মামীর জন্য আমি সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসে কয়েক বক্স টিস্যু পাঠিয়ে দিয়েছি। পেয়েছেন কি? কেঁদেকেটে লাভ কি হবে? বরং বাঘের থেকে মানুষ বড়, মানুষের থেকে রাজনীতিকদের পকেট। এ কথা মেনে নিন। শুনেননি? ‘বিশ্বাসে মিলায় বস্তু তর্কে বহুদূর।’
বাঘ মামা,
শুনলাম এর মাঝে আপনার মেয়ের স্কুল নাকি দুর্বৃত্তরা পুড়িয়ে দিয়েছে। তারপরও তারা টিন দিয়ে কোনমতে চালাঘর বানিয়ে পড়াশুনা করেছে, তাদের কে রোখে? স্কুলঘর পুননির্মাণে আর্থিক সহায়তা দেয়ার জন্য সুন্দরবন ম্যাচ ফ্যাক্টরির মালিককে বলেছি ডোনেশন দেয়ার জন্য।
আপনার পাইলস অপারেশনের খবর কি? চোখের ছানির অপারেশন করার কি হল? মায়ের ক্যান্সার কোন স্টেজে? বউয়ের কি এ বছরও বাচ্চা হবে? আপনার মুক্তিযোদ্ধা ভাতা কি বাড়ল? পুত্রধনের কি খবর? সেকি বাঘটিজিং করে বেড়ায়? ট্যাক্স রিটার্ন তৈরি করছেন? মনে কতো প্রশ্ন জাগে!
ইতি,
শেয়াল ভাগ্নে,
সুন্দরবন লঞ্চে ঢাকা টু বরিশাল পথে
((গত ২৮ জানুয়ারি রামপালবিরোধীদের কঠোর সমালোচনা করে চট্টগ্রামে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশের (আইইবি) জাতীয় কনভেনশন উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘‘রয়েল বেঙ্গল টাইগারদের সঙ্গে তাদের দেখা করে কথা বলা উচিত। তাদের জেনে নেয়া উচিত যে, রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য রয়েল বেঙ্গল টাইগারের কোনো সমস্যা হচ্ছে কিনা।’’))
কার্টুন: সংগৃহিত
Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s